অনলাইনে আছেন

  • জন ব্লগার

  • ৩৮ জন ভিজিটর

সকল পোস্ট (ক্রমানুসারে)

আমাদের সম্পর্কগুলো সবসময় একই সমান্তরালে চলে না কেন?

লিখেছেন লাবিব আহসান ২০২১-০১-২৪ ০৪:৫০:১১

১. চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস ফ্যাকাল্টির এক ঘনিষ্ট বন্ধুর সঙ্গে হাঁটছি। আবছা আঁধারে হাঁটছি। হাঁটতে হাঁটতে কথা বলা। দুঃখ বিরহের কথকতা। এক জীবনে মানুষ কত দুঃখই না বুকে বয়ে বেড়ায়! কিছু বলতে পারে, কিছু কখনোই কাউকে বলা হয়ে ওঠে না। সয়ে যেতে হয় একা একা। “এ ব্যথা বেদনা/ কাউকে বলবো না” ধরণের ব্যথা। আমরা হাঁটছি অনেক সময় নিয়ে। হাঁটছি অনন্তের পথে। “এই পথ যদি না শেষ হয়/ তবে কেমন হবে তুমি বলো তো!” জাতীয় ভাবনা আমাদের মস্তিষ্কের অলি-গলিতে ভর করে নি নিশ্চয়ই। কারণ আমরা...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৩২১ বার পঠিত     

ইমাম ইবনে তাইমিয়ার বিস্ময়কর অবদান..........

লিখেছেন লাবিব আহসান ২০২১-০১-২২ ১৫:৩৪:২৪

তুরস্কের আঙ্কারা থেকে বাংলাদেশের এই সময়ের একজন জনপ্রিয় লেখক ফোন করলেন। দীর্ঘ্য সময় ধরে কথা হচ্ছিলো আমাদের। কথা প্রসঙ্গে আমরা আলোচনা করছিলাম ইমাম ইবনে তাইমিয়ার কন্ট্রিবিউশন নিয়ে। তিনি ইমামের কথা বলতে গিয়ে বেশ বিস্ময় প্রকাশ করছিলেন, এতো স্বল্প জীবনে কি বিস্ময়কর কাজই না তিনি করে গেছেন! সত্যিই যখন এই প্রোডাক্টিভ মানুষগুলোকে নিয়ে ভাবতে বসি, বিস্ময়ে বিমূঢ় হয়ে যেতে হয়। আমরা যখন তথাকথিত “ধূর! কিছুই ভাল্লাগে না” বলে অলস সময় কাটাই, এই মানুষগুলো তখনও কাজ করতেন। এ ব্যাপারে একটি বিখ্যাত উক্তি আছে...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৭৪৭ বার পঠিত     

জীবন থেকে নেয়া......

লিখেছেন লাবিব আহসান ২০২১-০১-২১ ০৫:২৬:৩৯

জীবনের এক চরম দুঃসময় চলছে তখন। অনিশ্চয়তার ঘোর আঁধার আমাকে পেয়ে বসেছে ভীষণ। সামনে ঘুটঘুটে অমানিশা। আমি থাকি মিঠাপুকুর হাই স্কুলের পিছনের একটি ছাত্রাবাসে। থাকি বললে ভুল হবে। বরং বলা উচিত, লুকিয়ে থাকি। পুরো পৃথিবী থেকে বিচ্ছিন্ন। শুধু দুই একজনের সাথে যোগাযোগ হয়। বাড়িতে যাই লুকিয়ে লুকিয়ে, রাতের অন্ধকারে। কারণ আমার পরিচয় সংকট। এইচএসসিতে পেয়েছি ৩.৫৮। এই রেজাল্ট করার পর মানুষকে মুখ দেখানো যায় না। আমি আবারো পরীক্ষা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। মিঠাপুকুরের সেই ছাত্রাবাসে লুকিয়ে লুকিয়ে চলছে আমার প্...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৪৪৫ বার পঠিত     

ইমাম শাফেয়ী (রহ.) এর ৫২ বছরের প্রোডাক্টিভ জীবন......

লিখেছেন লাবিব আহসান ২০২১-০১-২১ ০৫:১৬:২৬

ইমাম শাফেয়ী (রহ.) এর জীবন ছিলো মাত্র ৫২ বছরের। এতো অল্প সময়কে তিনি কি করে এতো প্রোডাক্টিভ করে তুলেছিলেন সে এক বিস্ময়! এই স্বল্প সময়ে তিনি এতো বেশি কাজ করে গেছেন যা নিয়ে গবেষণা করে কোনো কূল কিনারা করা আজও সম্ভব হয় নি। মহা মনীষী জ্ঞানপিপাসু ইমাম শাফেয়ী (রহ.)-এর এক ব্যক্তি বা অঞ্চল হতে জ্ঞান শিক্ষা করে পিপাসা নিবারণ হয়নি। তাই তিনি এক ব্যক্তি হতে আরেক ব্যক্তি এবং এক অঞ্চল হতে আরেক অঞ্চলে জ্ঞানারহনে ভ্রমণ করেছেন, সাথে সাথে দ্বীন ও জ্ঞান প্রচার ও প্রসারেরও কোন কমতি হয়নি। সর্ব প্রথম তিনি মদীনা সফর কর...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ২৩৮ বার পঠিত     

প্রশান্ত আত্মার অধিকারীদের কবর জীবন কেমন হবে...?

লিখেছেন কহেন কবি ২০২১-০১-১৩ ১৮:০৭:৫৫

একদিন নবী করিম (সাঃ)এর একজন সাহাবী মারা গেলেন রাসূল পাক (সাঃ) উনার জানাজা পড়ালেন।তারপর একদল সাহাবী মৃতদেহ কবর দেয়ার জন্য কবরস্থানে নিয়ে আসলেন। সবার সাথে আমাদের নবী করিমও (সাঃ)হেঁটে হেঁটে আসলেন । দুই জন সাহাবী কবর খুঁড়তে শুরু করলেন । সবাই মৃত দেহকে ঘিরে বসে আছেন । কবর খনন শেষ না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করছেন ।সবাই চুপচাপ, নীরব ও শান্ত একটি পরিস্থিতি ।নবীজি গভীর মনোযোগ দিয়ে কবর খোঁড়া দেখছিলেন একটু পর সবার দিকে তাঁকিয়ে জিজ্ঞেস করলেন, "তোমরা কি জানো, মানুষ মারা যাওয়ার পর, তাঁর আত্মার কি হয়...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ২৯৯ বার পঠিত     

চোখের যিনা থেকে নিজেকে বাঁচিয়ে চলার অনন্য দৃষ্টান্ত......

লিখেছেন লাবিব আহসান ২০২০-১২-২৫ ১৭:৩৯:২৭

রাসূল (সঃ) এর একজন প্রিয় সাহাবী, যার নাম ছা’লাবা। মাত্র ষোল বছর বয়স। রাসূল (সাঃ) এর জন্য বার্তাবাহক হিসেবে এখানে সেখানে ছুটোছুটি করে বেড়াতেন তিনি। একদিন উনি মদীনার পথ ধরে চলছেন, এমন সময় একটা বাড়ির পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় তাঁর চোখ পড়ল দরজা খুলে থাকা এক ঘরের মধ্যে। ভিতরে গোসলখানায়একজন মহিলা গোসলরত ছিলেন, এবং বাতাসে সেখানের পর্দা উড়ছিল, তাই ছা’লাবার চোখ ঐ মহিলার উপর যেয়ে পড়ল। সঙ্গে সঙ্গে উনি দৃষ্টি নামিয়ে নিলেন। কিন্তু ছা’লাবার মন এক গভীর অপরাধবোধে...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৩১৮ বার পঠিত     

ধরণীর পথে প্রান্তরে.......

লিখেছেন লাবিব আহসান ২০২০-১২-২০ ০২:৩৪:০৪

মাথায় ঝাকড়া চুল নিয়ে উপস্থিত হলাম নাপিত স্বপন ভাইয়ের দরবারে। ঝাকড়া চুলে আমার নিজের কোনো সমস্যা দেখছিলাম না। সমস্যা আমার আশপাশের মানুষদের। "চুল কেন কাটাচ্ছো না"- বলতে বলতে অতিষ্ঠ করে ফেলছিলো সবাই। অবশ্য বাড়িতে থাকলে চুল ঝাকড়া বানানোর সুযোগ না-ও পেতে পারতাম। আব্বু প্রতিদিন একবার করে বলতেন, "কি রে বাবারে, চুলগুলো কি কাটানো যায় না? ঝাকড়া মাথার চুল, খাবার কোনো ঠিকঠিকানা নেই, কোথায় যে খায়, কোথায় যে ঘোরে! এভাবে চলে কি একটা মানুষ সুস্থ থাকে?" তখন আমি এমন একটা ভঙ্গিতে তাঁর সামনে চলাফেরা করতাম, যেন কিছু...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৩১৬ বার পঠিত     

ছোট গুনাহ গুলোই এক সময় মানুষকে বড় গুনাহ করতে প্ররোচিত করে...

লিখেছেন রূপা ২০২০-১২-১৪ ১৮:৩৩:৫৭

  আমি একটা পরিবারকে চিনি। আমাদের খুব কাছের মানুষ তারা। তাদের পরিবারে গুনাহের একটা লিমিট নির্ধারিত আছে যেখানে, কতগুলো গুনাহকে তারা হালাল করে নিয়েছে। তারা সিনেমা দেখে, গান শোনে, তাস খেলে, বাইরে গেলে মহিলারা পর্দা করলেও পরিবারের ভেতরে নন মাহরামের সামনে পর্দা নেই এবং এর সবই তাদের পরিবারে হালাল। তাদের মতামত হলো , এই কাজগুলো করলে দোষ নেই। তাদের পরিবারে দোষের হলো হারাম রিলেশন করা, মিথ্যা বলা , স্বামীর অবাধ্য হওয়া এবং ঘর থেকে বের হলে বেপর্দা বের হওয়া। প্রায় পাঁচ বছর আগে তাদের পর...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৩৮১ বার পঠিত     

সীরাত কেন পড়বেন এবং কীভাবে পড়বেন...?

লিখেছেন কহেন কবি ২০২০-১২-১২ ১৭:৪১:৫৩

  সীরাত হল সুন্নতের ব্যাখ্যা, আর সুন্নত হল সিরাতের ব্যাখ্যা। কিভাবে? আরবী ভাষায় সীরাতের বহুবচন হল ‘সিয়ার’। এর শাব্দিক অর্থ হল, জীবন পরিচালনার ধরণ, পথ, তদবীর এবং প্রশাসন, আচার-আচরণ। সীরাতের শাব্দিক অর্থঃ পবিত্র কোরআনে কারীমের এক স্থানে হযরত মুসা (আঃ) এর মুজিযার লাঠির সাপে পরিণত হওয়ার ঘটনাকে বুঝানোর সময় এটি ব্যবহার করা হয়েছে। সূরা ত্বহায় বলা হয়েছে, قَالَ أَلْقِهَا يَا مُوسَىٰ فَأَلْقَاهَا فَإِذَا هِيَ حَيَّةٌ تَسْعَى قَالَ خُذْهَا وَلَا تَخَفْ ۖ سَنُعِيدُهَا سِيرَ...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৫৬২ বার পঠিত     

আপনি কি জীবন যুদ্ধে সেরাদের সেরা হতে চান...?

লিখেছেন Shahmun ২০২০-১২-০৭ ২২:৫৫:০০

একবার এক ব্যক্তি কয়েক কোটি টাকা খরচ করে একটি বিএমডব্লিউ গাড়ি ক্রয় করেন। বিএমডব্লিউ বিশ্বের সবচেয়ে দামি গাড়ির ব্রান্ড। সেই ব্যক্তি গাড়িটি ক্রয় করার পর একটি সুরক্ষিত গ্যারেজে রেখে দেন। গাড়িটি রেখে দেওয়ার পর তিনি একটি কাজে বছর দুয়েকের জন্য বিদেশ চলে যান। বিদেশ থেকে ফিরে আসার পর তিনি গ্যারেজে গাড়ির হাল-হাকিকত দেখতে গেলেন।তিনি আশা করলেন, যেহেতু পৃথিবীর সবচেয়ে দামি ব্রান্ডের গাড়ি এবং কয়েক কোটি টাকা খরচ করে ক্রয় করেছেন, তাই বছর দুয়েক ফেলে রাখার পরও সেটাতে কোনো পরিবর্তন আসবে না। হয়তো কিছু ধুলাবালি জমে...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৩২৯ বার পঠিত     

 নিউজ আপডেট

 এ সপ্তাহের সর্বাধিক পঠিত পোস্ট

 এ সপ্তাহের সর্বাধিক মন্তব্যকৃত পোস্ট

 আর্কাইভ