অনলাইনে আছেন

  • জন ব্লগার

  • ৩৯ জন ভিজিটর

সকল পোস্ট (ক্রমানুসারে)

ইসলাম তো এক, তাহলে হানাফী, সালাফি, সুফি, মুতাজিলা, আশয়ারি, মাতুরিদি এতো ভাগ কেন?

লিখেছেন জিবরান ২০১৯-০৩-২৩ ১৫:৪৩:৩০

প্রথমেই একটি হাসপাতাল কল্পনা করুন। হাসপাতালের রোগীর সংখ্যা যখন খুব কম ছিলো তখন একজন ডাক্তার দিয়েই সব রুগীকে চিকিৎসা দেয়া হতো। কিন্তু, রুগীর সংখ্যা যখন বাড়তে লাগলো, তখন হাসপাতালের ডাক্তারের সংখ্যাও বাড়াতে হলো। এরপর, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রোগের শ্রেণীবিন্যাস করতে শুরু করলো। নাক-কান-গলা বিভাগ, চক্ষু বিভাগ, গাইনি বিভাগ, শিশু বিভাগ, ডাইবেটিস বিভাগ, ডেন্টাল বিভাগ ও সার্জারি বিভাগ সহ আরো বিভিন্ন বিভাগ। এখানে সবগুলো বিভাগের উদ্দেশ্য একটাই, রোগীকে সুস্থ করা; কিন্তু, রুগী ও ডাক্তারের সংখ্যা বাড়ায় হাসপাতালক...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৪৮২ বার পঠিত     

হানাফি, সালাফি, মালিকি বলে ইসলামকে টুকরা করে উপস্থাপনার হিড়িক...

লিখেছেন Nazrul Islam Tipu ২০১৯-০৩-২১ ১৬:৩৮:১১

নামের সাথে টাইটেল লাগানো নিয়ে একটি পোষ্ট দিয়েছিলাম। পরে দেখলাম তারা তো সেই টাইটেলের কিছুটা হক্কদার কেননা তারা সেখান থেকে ডিগ্রী নিয়েছে। ইদানীং কালে দেখেছি নামের সাথে মতবাদের টাইটেলের প্রভাবও ধীরে ধীরে বাড়ছে। খলিলুল্লাহ সালাফী, জবীউল্লাহ হানাফী থেকে শুরু করে যেভাবে টাইটেলের গতি বাড়ছে না জানি কখন কেউ শফিউল্লাহ ফাসেকী না লিখে বসে! প্রবাসী বন্ধু জুমাবারের নামাজের ঠিক আগেই নতুন ভাড়া বাসায় পৌঁছলেন। ছেলেকে জিজ্ঞাসা করলেন, বাবা কোন মসজিদে নামাজ পড়বে? ছেলের আবদার, আম্মু সর্বদা কাছের মসজিদে নামাজ...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৪৪৭ বার পঠিত     

বর্তমান সময়ের মুসলমানদের মধ্যে পর্যাপ্ত ‘আকল’ দেখা যায় না

লিখেছেন কহেন কবি ২০১৯-০৩-১৯ ২১:০৯:৫৩

কোর'আনের প্রচুর আয়াতে মানুষকে 'আকল' ব্যবহার করার কথা বলা হয়েছে। 'আকল' শব্দের সঠিক বাংলা অর্থ হলো যুক্তি। আরবি ভাষায় আকল শব্দের অর্থ হলো একটি জিনিসের সাথে অন্য একটি জিনিসকে যুক্ত করা। যেমন, আরবি ভাষায় বলা হয় 'আকালা দাব্বাহ' (عَقَلَ الدَّابَّةَ), মানে পশুটিকে বাঁধলো। কোনো একটি তথ্যকে অন্য একটি তথ্যের সাথে যুক্ত করাকে বাংলায় যুক্তি বলা হয়, এবং আরবিতে তাকে আকল বলা হয়। কোর'আনে আকল শব্দটিকে কখনো ইসেম বা বিশেষ্য পদ আকারে ব্যবহার করা হয়নি, বরং সবসময় আকল শব্দটিকে ফেল বা ক্রিয়াপদ হিসাবে ব্যবহার করা...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৪০৬ বার পঠিত     

রসুলুল্লাহ সা নারীদের যেসব বিষয় নিষেধ করেছেন...

লিখেছেন জিবরান ২০১৯-০৩-১৯ ১৫:০৪:৫৭

রসুলুল্লাহ সা মুসলিম নারীদের এই বিষয়গুলো নিষেধ করেছেন: ০১. প্রতিবেশীদের কষ্ট দেয়া।০২. কাজের লোক বা খেদমতগারদের শাস্তি দেয়া।০৩. সন্তানদের অভিশাপ দেয়া।০৪. গণকদের কাছে যাওয়া-যারা ভাগ্য ও ভবিষ্যৎ গণে।০৫. নিকটাত্মীয়দের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করা।০৬. কফিনের অনুসরণ করা। জানাযায় শরিক হওয়া।০৭. মুসলমানের সাথে তিনদিনের অধিক সম্পর্ক কর্তন করা।০৮. গিবত করা ও অপবাদ ছড়ানো।০৯. অন্যদের দোষ খুঁজে বেড়ানো।১০. কারো প্রতি জুলুম করা।১১. চিৎকার করে কান্নাকাটি করা।১২. নিষ্প্রয়োজনে বাইরে ঘোরাফেরা করা।১৩. স্বামির বিনা অন...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৪৪৬ বার পঠিত     

সহীহ কুফুরী আকিদা: নবীগণ মিথ্যুক, মিথ্যাবাদী হতে পারে কিন্তু বুখারী মুসলিমের কোন রাবীর ভুল হতে পারে না!

লিখেছেন জিবরান ২০১৯-০৩-১৮ ১৮:৪১:২৯

আল্লামা মওদুদী (রাহঃ) বিরোধীতা করতে গিয়ে একশ্রেণীর বিপদগামী আলেম মুসলিম জাতির পিতা হযরত ইবরাহীম (আ) কে মিথ্যুক, মিথ্যাবাদী প্রমাণ করার অপচেষ্টা করে আসছে। বর্তমানে নব্য আহলে হাদীসগণ সেই কুফুরী মতবাদকে সহীহ বুখারীর লেভেল লাগিয়ে খুব জোড়ে সোড়ে প্রচার করছে মওদুদী (রাহঃ) গোমড়া! কারণ তিনি তাঁর তাফসীরে "নবী মিথ্যুক" হওয়ার বুখারীর হাদীস গ্রহণ করেন নি। আর তাদের সহীহ কুফুরী আকিদা হলো নবীগণ মিথ্যুক, মিথ্যাবাদী হতে পারে কিন্তু বুখারী মুসলিমের কোন রাবীর ভুল হতে পারে না। (নাউযুবিল্লাহ).আল্লাহ তা'আলা কুরআনুল...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৫৯৩ বার পঠিত     

দার্শনিক কবি আল্লামা ইকবাল বলেছেন...

লিখেছেন Muhammad Noman ২০১৯-০৩-১৮ ১৫:৩৮:৫৬

দলীলে সু্বহে রওশন হ্যায়, সিতারুঁ কি তুনকতাবীউফুক্ব সে আফতাব উভরা, গেয়া দওরে গিরাঁ খাবী।উরুক্বে মুরদায়ে মাশরিক্ব মে খুনে জিন্দেগী দওড়াসামাজ্ সেকতে নেহি ইস রায কো সীনা ওয়া ফারাবী।মুসলমাঁ কো মুসলমাঁ কার দিয়া তোফানে মাগরিব নেতালাতুম হায়ে দারইয়া হী সে হ্যায় গওহর কি সেইরাবী। ভাবানুবাদ: রাতের শেষে তারার ফ্যাকাশে আলো একটি ঝলমলে আলোর ভোরের আগমনবানী শুনাচ্ছে। পুবদিগন্ত ভেদ করে সুর্য্য উদিত হলো, সেই সাথে গভীর ঘুমের পালাও শেষ হলো। এবার প্রাচ্যের যুবকের শিরায় জীন্দেগীর খুন টগবগিয়ে উঠলো, যার গভীর রহস্য...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৪৫৬ বার পঠিত     

ইসলাম কি কাফিরদের হত্যা করতে বলে?

লিখেছেন কহেন কবি ২০১৯-০৩-১৩ ২০:০৭:১৭

- ইসলাম কি কাফিরদের হত্যা করতে বলে? - হত্যা করতে বললে ইসলাম খারাপ, আর হত্যা না করতে বললে ইসলাম ভালো? - না তা না, সত্যটা জানা উচিত। - ইসলাম কাফিরদের দুনিয়াতে কয়েকটা সুযোগ দিতে বলে, এর মধ্যে হত্যাও একটা! - হত্যা আবার কি ধরণের সুযোগ?! - হ্যাঁ এটাও একটা সুযোগ। - কিন্তু এটাতে মানবাধিকার লঙ্ঘন হয় না? - দেখো কোনটা মানবাধিকার, কোনটা না সেটা ডিফাইন করবেন আল্লাহ তা'আলা। এখন তুমি যদি মেনে নাও যে ইসলাম আল্লাহর প্রেরিত দ্বীন, তাহলে ইসলাম যেটা বলে সেটাই মানবাধিকার, যদি তোমার কাছে 'মানবাধিকার' খুব বেশ...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৩৮৬ বার পঠিত     

ইসলামের কোন বিধানটির বিষয়ে বঙ্গ রমনীকুল বিরক্ত হয়?

লিখেছেন জিবরান ২০১৯-০৩-১১ ১৬:০১:২৩

ইসলামের কোন বিধানটির বিষয়ে বঙ্গ রমনীকুল বিরক্ত হয়? পর্দা! না। উত্তরাধিকার! না। তবে!! নিশ্চিত থাকেন অতি ধার্মিক বঙ্গরমনীও ইসলামের যে বিধানটা এড়িযে যেতে চায় তা হল পুরুষের সর্বোচ্চ চারটি বিয়ের অনুমতি। শুধু বিয়ে কেন স্বামিকে সবসময় সন্দেহের চোখে দেখাও বঙ্গ রমনীকূলের একটা এপিডেমিক মানসিক রোগ। এটা কেন হল? বাংলাদেশে ইসলামের ক্ষেত্রে দেখা যায় অনেক কিছু যেটা প্রকৃতপক্ষে ইসলামি নয় যেমন বিধবাদের বিয়ে না হওয়া এবং নারীদের সামাজিক জীবন থেকে দূরে সরিয়ে রাখা ইত্যাদি ইসলামের নামে প্রচলিত হলেও সেগুলি এসেছে...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৬১৫ বার পঠিত     

ইসলামই নারীর সম্মানের সর্বশ্রেষ্ঠ রক্ষাকবচ.........

লিখেছেন লাবিব আহসান ২০১৯-০৩-০৯ ০৪:২১:১৪

বাবা এসেই মেয়ের মাকে বললেন, “মেয়েকে সাজিয়ে দাও। একটা দাওয়াতে যাবো।” মা অল্প সময়ের মধ্যেই মেয়েকে নতুন জামা পরিয়ে সাজিয়ে দিলেন। এখন মেয়েকে দেখতে লাগছে অনেকটা রাজকন্যার মতো। বাবার তাকানোর ভঙ্গিতে মুগ্ধতা। কিন্তু এই মুগ্ধতা সত্যিকারের নাকি মেকি তা তাঁর তাকানোর ভঙ্গিতে ধরা পড়লো না। মেয়ে উঠে পড়লো বাবার কাঁধে। বাবা; তার জীবনের প্রথম নায়ক, প্রথম ভালোবাসা, প্রথম বন্ধু, পরম নির্ভরতার এক আশ্রয়। ছোট্ট মেয়েটা তার অপরিপক্ক, কচি কচি, কোমল হাত দুটো দিয়ে আঁকড়ে ধরে থাকলো বাবাকে। ধরে থাকলো সেই আশ্রয়কে,...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৪১৬ বার পঠিত     

আতঙ্কিত এতেকাফ...

লিখেছেন Nazrul Islam Tipu ২০১৯-০৩-০৬ ১৭:২০:৩৮

হাই স্কুলে উঠেই একবার মসজিদে এতেকাফে গিয়েছিলাম। এক ধনী মুরুব্বী ভীষণ খুশী হয়েছিল, তিনি আমাদের ঘরে খবর দিয়েছিলেন যে, ঈদের আগ পর্যন্ত তাঁরা আমার প্রতি দিন কার খানার ব্যবস্থা করবেন। আমিও খুব উৎফুল্ল হয়েছিলাম কিন্তু পরদিন থেকেই আমার উৎফুল্লতা আতঙ্কে রূপ নিয়েছিল। আতঙ্কের কারণ দুই বাড়ীর দুই বুড়ো মুরুব্বী। দুই জনই পাক্কা নামাজী মানুষ কিন্তু এদের মাঝে মিল-মহব্বত নেই। এদের সম্পর্কে একটু ধারনা দেবার দরকার। প্রথম মুরুব্বী বই পাগল। সর্বদা ওনার হাতে-বগলে বই দেখতাম। ওনাকে নিয়ে আমার কোন কৌতূহল ছিলনা কেননা ত...বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৪৭৪ বার পঠিত     

 নিউজ আপডেট

 এ সপ্তাহের সর্বাধিক পঠিত পোস্ট

 এ সপ্তাহের সর্বাধিক মন্তব্যকৃত পোস্ট

 আর্কাইভ