অনলাইনে আছেন

  • জন ব্লগার

  • ২১ জন ভিজিটর

আফগানী

২৮ জানুয়ারী, ২০১৯ তে নিবন্ধিত

৬৭০ টি ব্লগ পোস্ট লিখেছেন

৬ টি কমেন্টস করেছেন

১১ টি কমেন্টস পেয়েছেন

ব্লগারের লেখা ৩৯১ বার পঠিত হয়েছে

শেষবার লগইন করেছেন ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২ তারিখে

আজ জেরুজালেম বিজয়ের দিন

  আজ ২ অক্টোবর। জেরুজালেম বিজয়ের দিন। প্রায় সাড়ে আটশ বছর আগের কথা। এতদিনে সেই বিজয় আবার পরাজয়ে পরিণত হয়েছে।   গাজী সালাহউদ্দিন প্রায় সব ক্রুসেডারদের শহর জয় করেছিলেন। এরপর জেরুজালেম অবরোধ করে রাখলেন। অবরোধের শুরুতে তিনি জেরুজালেমে বসবাসরত বহিরাগতদের কোনো নিরাপত্তা না দেয়ার সিদ্ধান্ত ন...বাকিটুকু পড়ুন

মুমতাজুল মুহদ্দিসীন মাওলানা আব্দুর রহীমের জীবনী

কিছু মানুষ আছেন যাদের কখনো দেখিনি। শুধু বই পড়ে উস্তাদ মেনেছি। এমনি একজন মাওলানা মুহাম্মদ আবদুর রহীম। উপমহাদেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ইসলামী চিন্তাবিদ, সাহিত্যিক, রাজনীতিবিদ, সাবেক সংসদ সদস্য, ইসলামী আন্দোলনের সিপাহসালার ছিলেন হযরত মওলানা মুহাম্মাদ অবদুর রহীম (রহ.)   জন্ম : ১৯১৮ সালের ১৯ জানুয়ারি ব...বাকিটুকু পড়ুন

শাহ্‌ সুজা থেকে শায়েস্তা খান : বাংলার সোনালী যুগ

ইসলাম খান চিশতির পর ১৬১৩ থেকে ১৬৩৯ সাল পর্যন্ত প্রায় নয়জন সুবাহদার বাংলা শাসন করেন। তাদের এই শাসনের মাধ্যমে ধীরে ধীরে ঢাকা গুরুত্বপূর্ণ শহরে পরিণত হয়। মোগল সম্রাট শাহজাহান তার ছেলে শাহ সুজাকে ১৬৩৯ খ্রিস্টাব্দে বাংলার সুবাহদার নিযুক্ত করেন। ১৬৪২ খ্রিস্টাব্দে তাঁকে ঊড়িষ্যা প্রদেশের দায়িত্বও অর্পণ কর...বাকিটুকু পড়ুন

বাংলায় মোগল শাসনের সূত্রপাত, বারো ভুঁইয়া ও ঢাকার গোড়াপত্তন

  ১৫৭৬ সালে বাংলার আফগান সুলতান দাউদ খান কররানী পরাজয়ের পর বাংলা মোগল সম্রাট আকবরের অধীনে চলে আসে। সম্রাট আকবর বারো সুবাহর একটি হিসেবে বাংলার নাম ঘোষণা করেন। এরপর থেকে বাংলার নাম হয়ে যায় সুবাহ বাংলা। যার সীমানা ছিল বর্তমান বিহার, ওড়িশা, বাংলা হয়ে আরাকান পর্যন্ত।   ১৫৭৬ সাল থেকে ১৭১৭ স...বাকিটুকু পড়ুন

খিলাফত রাষ্ট্র বা ইসলামী রাষ্ট্র কী? জামায়াত কী চায়?

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী যে ইসলামী রাষ্ট্র বা ইসলামী খিলাফতের কথা বলে তার উদাহরণ হিসেবে তারা দুইটি শাসন ব্যবস্থাকে স্থির করেছে। সেগুলো হলো নববী শাসন ও খেলাফতে রাশেদা। এই দু'টি শাসন ব্যবস্থা থেকে আমরা কিছু মূলনীতি পাই যা দ্বারা আমরা আমাদের সমাজ ও অধীনস্থ এরিয়া পরিচালনা করতে পারি।   নববী শাসন...বাকিটুকু পড়ুন

মাওলানা আব্দুর রহীম কেন জামায়াত ছেড়েছেন?

সময়টা ১৯৭৬ সাল। শেখ মুজিবের ভূমিধ্বস পতনে এদেশের মানুষ হাঁফ ছেড়ে বাঁচে। সবচেয়ে বেশি উপকার হয় ৭১ সালের পরাজিত শক্তি এদেশের ইসলামপন্থী দলগুলোর। ১৯৭২ সালে মুজিব সবগুলো ইসলামী দলকে নিষিদ্ধ করে দেয়। এর মধ্যে একমাত্র জামায়াত ছাড়া আর কেউই তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যেতে সমর্থ হয়নি। দলগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয়...বাকিটুকু পড়ুন

বিংশ শতাব্দির শ্রেষ্ঠ মুজাদ্দিদ উস্তাদ সাইয়েদ আবুল আ'লা মওদূদী রহ.

সাইয়েদ আবুল আ'লা মওদুদী ছিলেন একজন মুসলিম গবেষক, সাংবাদিক, রাজনৈতিক নেতা ও বিংশ শতাব্দীর একজন গুরুত্বপূর্ণ ইসলামী চিন্তাবিদ, মুজাদ্দিদ ও দার্শনিক। তিনি দক্ষিণ এশিয়ার একজন গুরুত্বপূর্ণ প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বও ছিলেন। তিনি জামায়াতে ইসলামী নামে একটি ইসলামী রাজনৈতিক দলেরও প্রতিষ্ঠাতা। তিনি ছিলে...বাকিটুকু পড়ুন

বাংলায় আফগানীদের শাসন

শের শাহ সুর ১৫৩৮ সালে ৬ এপ্রিল সুলতান গিয়াসউদ্দিন মাহমুদ শাহকে পরাজিত করে বাংলা দখল করে নেন। সেই থেকে বাংলায় স্বাধীন সুলতানী আমলের পরিসমাপ্তি ঘটে এবং একই সাথে বাংলায় আফগানদের শাসন শুরু হয়। সেই থেকে শুরু করে ১৫৭৬ সালে দাউদ খান কররানী মোগলদের হাতে পরাজিত হওয়া পর্যন্ত বাংলায় আফগানীদের শাসন জারি থাকে। শ...বাকিটুকু পড়ুন

যুবলীগের ক্যাসিনো ও স্বৈরাচারের খেলা

আমি যখন ঢাকায় নাজিল হয়েছি তখন সেটা ছিলো ২০১৫ সাল এবং সেটা আরামবাগে। তখন দেশ ছিলো রাজনৈতিকভাবে উত্তাল। সেই উত্তাল সময়েও বাফুফে ভবনের আশে পাশে গড়ে ওঠা ক্লাবগুলোকে দেখেছি নিরবিচ্ছিন্নভাবে জুয়া, মদ ও নৃত্যের আসর বসাতে।   কেউ ফুটবলের উন্নতির কথা বললে আমি হাসতাম কারণ চোখের সামনে দেখছি ক্লাবগুলোর সা...বাকিটুকু পড়ুন

সুলতানি আমলের অবসান, শ্রী চৈতন্যের আবির্ভাব ও মুসলিমদের চ্যুতি

  সুলতান নাসির উদ্দিনের মাহমুদ শাহের মৃত্যুর পর বাংলার ক্ষমতায় আসেন রুকনউদ্দিন বারবাক শাহ। তিনি ১৪৫৯ সাল থেকে ১৪৭৪ সাল পর্যন্ত বাংলার ক্ষমতায় ছিলেন। রুকন উদ্দিন তার বাবার মতই খ্যতিমান ছিলেন।    রিসালাতুস শুহাদা একটি ফার্সি বই যেখানে রুকনউদ্দিনের শাসনামলের বর্ণনা পাওয়া যায়। বইটি শাহ...বাকিটুকু পড়ুন