অনলাইনে আছেন

  • জন ব্লগার

  • ৩৭ জন ভিজিটর

বিয়েতে বরকে দেওয়া সোনার আংটি...

লিখেছেন রূপা মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারী ২০২২
 
আমরা কি জানিনা যে দুনিয়ায় স্বর্ণ ব্যবহার পুরুষদের জন্য হারাম করা হয়েছে? নাকি রাসূল ﷺ-এর হাদিস পড়েও না জানার ভান ধরে এই প্রথা চালিয়ে দিচ্ছি?!
বিয়ের নামে এই প্রথা চালুর জন্য কি শাস্তি পেতে হবে না? যারা জেনে শুনে নবী করিম ﷺ এর আদেশকে অমান্য করছে তারা কি জান্নাতে যেতে পারবে?
আমাদের মুসলিম পরিবারের বেশিরভাগ বিয়েতে কনে বরকে স্বর্ণের আংটি পরিয়ে দেয়। আর এই রেওয়াজ বহু বছর ধরে চলে আসছে এখনো প্রাই চলছে।
শুধু বরকে নয়, বরের বোন জামাই দেরকেরও স্বর্ণের আংটি উপহার দেয়া হয়। আর বিয়েতে বরকে অনেক আত্মীয়-স্বজনও স্বর্ণের আংটি উপহার দিয়ে থাকে!
হযরত আবু হুরায়রা (রা:) বলেন, “রাসূলুল্লাহ ﷺ সোনার আংটি পরিধান করতে নিষেধ করেছেন”। [বুখারী, আস-সহীহ, আদাবুয যুফাফ: ২১৪]
রাসূলুল্লাহ ﷺ আরো বলেছেন: “আমার উম্মতের যে ব্যক্তি (পুরুষ) সোনা পরিধান করবে, আল্লাহ তার প্রতি জান্নাতের সোনা হারাম করে দিবেন”। [মুসনাদে আহমাদ, আদাবুয যুফাফ: ২২২ পৃষ্ঠা]
হযরত আলী (রা:) বলেন, “রাসূল ﷺ আমাকে সোনার আংটি পরিধান করতে নিষেধ করেছেন”। [আবূ দাঊদ, আস-সুনান, মিশকাতুল মাসাবীহ: ৪৫৬]
হযরত আবদুল্লাহ ইবনু আব্বাস (রা:) থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ ﷺ এক লোকের হাতে সোনার একটি আংটি দেখলেন। তিনি তা খুলে নিয়ে নিক্ষেপ করলেন এবং বললেন, “তোমাদের কোন ব্যক্তি আগুনের টুকরো হাতে রাখতে চাইলে এই আংটি হাতে রাখতে পারো”। [মুসলিম, আস-সহীহ, আদাবুয যুফাফ: ২১৫ পৃষ্ঠা]
হযরত আবু হুরায়রা (রা:) বলেন, রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন: “যে ব্যক্তি তার প্রিয়জনকে আগুনের কড়া পরানো পছন্দ করে, সে যেন তাকে সোনার কড়া বা আংটি পড়ায়”। [মিশকাতুল মাসাবীহ: ৪৪০১, বাংলা মিশকাতুল মাসাবীহ: ৪২০৫]
হযরত যায়েদ ইবনু আকরাম (রা:) বলেন, রাসুলুল্লাহ ﷺ বলেছেন: “স্বর্ণ ও রেশমি বস্ত্র আমার উম্মতের নারীদের জন্য বৈধ এবং পুরুষের জন্য হারাম”। [সিলসিলা সহীহা: ১৮৬৫ ও ৩০৩০]
উপরোক্ত হাদিস গুলো থেকে আমরা জানতে পারলাম পুরুষের জন্য স্বর্ণ ব্যবহার হারাম। তাই বিয়েতে বরকে স্বর্ণের আংটি পরিয়ে দেয়া কোনভাবেই জায়েজ নয়।
মহান আল্লাহ্ তা’য়ালা আমাদের সকলকে দ্বীনের সহীহ বুঝ এবং ইসলামী শরিয়ত অনুযায়ী হালাল ও হারাম বুঝার তাওফীক দান করুন।
দ্বীনের স্বার্থে পোস্টটি আপনার ওয়ালে শেয়ার করতে পারেন। যত খুশী কপি করতে পারেন অনুমতি নেয়ার প্রয়োজন নেই। কেউ এটি দেখে আমল করলে তা আমাদের জন্য ইনশাআল্লাহ সাদকায়ে জারিয়া হিসাবে গণ্য হবে।

বিয়ে
০ টি মন্তব্য      ২৬৮ বার পঠিত         

লেখাটি শেয়ার করতে চাইলে: