অনলাইনে আছেন

  • জন ব্লগার

  • ২১ জন ভিজিটর

মুসলিমরা কি শুধু শোক প্রকাশকারী জাতিতে পরিণত হলাম!

লিখেছেন অদ্রি হাসান শনিবার ১৬ মার্চ ২০১৯

পৃথিবীর তাবৎ ডমিন্যান্টদের একটি শক্তিশালী অপারেটিভ ট্যাকটিস হল “imposing reaction, demanding attention.” 
তথা আধিপত্যশীলরা, যাদের ক্ষমতা আছে তারা আপনার প্রতি এমন কোন অন্যায় করবে যাতে আপনার মধ্যে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হবে, আপনি বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠবেন কিন্তু তার বিরুদ্ধে লিগ্যাল এ্যকশন নিতে পারবেন না, আপনার সে সামর্থ নেই। মানে হচ্ছে আপনি একবার ভিকটিম হয়েছেন, কিন্তু তারা শুধু এতটুকুতেই সন্তুষ্ট নয়, তারা চায় আপনাকে ডাবল ভিকটিমে পরিণত করতে। একবার ভিকটিম হওয়াটা হল সাইনপোস্ট যে আপনি আরো ভয়ংকরভাবে ভিকটিম হতে যাচ্ছেন, যদি ট্যাকেল দিতে সক্ষম না হন। যেমন- মসজিদে অবস্থানরত মুসল্লিদের উপর হামলা, আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর আইন বিরোধী কর্মকাণ্ড, দুর্নীতি দমন কমিশনের সীমাহীন দুর্নীতি, বিচারকের বিচারিক হত্যাকাণ্ড, ওয়াজের হেদায়াতের বদলে বিভাজনের ওয়াজ, ওয়াজের নামে শব্দদূষণের মাধ্যমে মানুষকে অত্যাচার করা –এসবের বিরুদ্ধে মানুষ যখন লিগ্যাল ফ্রেমওয়ার্কের মধ্যে প্রতিকার করতে পারে না, তখন কিছু সংখ্যক জানেনা কিভাবে তার প্রতিক্রিয়া করা উচিত। তখন কিছু সংখ্যক ইমোশন তাড়িত হয়ে আরেকটা ভুল করে, আইন বিরোধী প্রতিক্রিয়া দেখায়।

এবার শুরু হয় ডাবলি ভিকটিম হওয়ার পালা। যেহেতু সে আইন বিরোধী কিছু একটা করেছে তার বিরুদ্ধে সবচে’ বেশি আইনভঙ্গকারী এজেন্সী আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এইটা হাইস্যকর, কিন্তু বাস্তবতা। তাই আমার মনে হয় আমরা তো বহুশোক পালন করলাম আফগান, ইরাক, সিরিয়া, কাশ্মীরের নিরপরাধ জনতার জন্য, সস্তা শোক প্রকাশ আমাদের অকেশনে পরিণত হয়েছে। কিন্তু এর ফলাফল কি? আমরা কি শুধুই ব্যথিত হব? This is stereotype, so stereotype! একজন ইনডিভিজ্যুয়াল হিসাবে আমাদের যে দায়িত্বশীলতা আছে তা আমরা পালন করছি কিনা, সেটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমি নিরপরাধ মুসল্লি হত্যায় শোক পালন করি, আবার স্বৈরাচারকে ও তার নিরপরাধ মানুষ হত্যাকে সাপোর্ট করি –এটা খুবই স্ববিরোধীতা। আমি নিউজল্যান্ডে সংঘঠিত বর্বরতায় সোচ্চার , কিন্তু আমার পাশে সংঘঠিত বর্বরতায় কমফোর্ট ফিল করি, কারণ তাতে আমার স্বার্থ আছে, আমি আর্থিক ও সামাজিকভাবে লাভবান হচ্ছি। এটা র‌্যাডিকিউলাস মানে হাইস্যকর।

আমাদের “Art of Reaction”, “Art of Not Being Victim” –এসব ডিসকোর্স আলোচনা খুব বেশি প্রয়োজন।

 


“imposing reaction demanding attention.” ডাবল ভিকটিম “Art of Reaction” “Art of Not Being Victim
০ টি মন্তব্য      ৩২১ বার পঠিত         

লেখাটি শেয়ার করতে চাইলে: